Ticker

6/recent/ticker-posts

Ads

ফেসবুক প্রোফাইল থেকে মাসে 50000 টাকা | ফেসবুক নতুন নিয়মে টাকা ইনকাম চালু করলো

Facebook profile income details in Bangla


2004 সালের দিকে যখন ফেসবুক পৃথিবীর মাঝে উন্মুক্ত হয় ইন্টারনেট জগতে যখন নতুন একটি সোশ্যাল মিডিয়া নিয়ে হাজির হয় তখন থেকেই ফেসবুক মানুষ ব্যবহার করতে পারত ফ্রিতে কিংবা মানুষ ফেসবুক ব্যবহার ফ্রিতে করতে স্বাচ্ছন্দ বোধ করতো । এই সুযোগকে কাজে লাগিয়ে ফেসবুক হয়ে গিয়েছেন মিলেনিয়ার তো বুঝতেই পারতেছেন মানুষের ইমোশনাল কে কাজে লাগিয়ে ফেসবুক কোথায় চলে গিয়েছে। (কিভাবে ফেসবুক প্রোফাইল থেকে ইনকাম করব)

তবে এবার সময় আল্লায় দিলে বদলিয়েছে এখন চাইলেই আর আগের মত কাজগুলো করে মানুষকে ফাঁকি দিয়ে টাকা ইনকাম করার দিন শেষ হয়ে গিয়েছে ফেসবুকের এখন অনলাইন থেকে টাকা ইনকাম করতে গেলে অবশ্যই মানুষের সাথে রেভিনিউ শেয়ার করতে হয় সেটা ইচ্ছাকৃত হোক কিংবা অনিচ্ছা ক্ষেত্রে হোক কারণ এখন শুধু মার্কেটপ্লেসগুলোতে ফেসবুক আছে এরকম নয় আরো অনেক জনপ্রিয় সোশ্যাল মিডিয়ায় এসেছে । (facebook view point taka inkum ki kore korbo)



মানুষ আর এখন আগের মত ফ্রিতে অনলাইনে থাকতে চায় না এখন প্রায় প্রতিটা মানুষই অনলাইন থেকে অর্থ উপার্জন করার চিন্তা-ভাবনা করে থাকে বা চেষ্টা করে থাকে অনেকে সফল হন আবার অনেকে ব্যর্থ হন তারপরও কিন্তু থেমে নেই মানুষের অনলাইনে কাজ করার আগ্রহ ।

এখন বর্তমান পৃথিবীটা হচ্ছে প্রতিযোগিতামূলক বাজারে কিছুদিন আগে টিকটক দেখিয়ে দিয়েছে পুরো বিশ্ববাসীকে যে একটি সোশ্যাল মিডিয়াকে কিভাবে ভাইরাল করতে হয় যে পরিমাণ অর্থ টিকটক কর্তৃপক্ষ জনগণকে ফ্রিতে উপহার দিয়েছে সে কারণে টিকটক এখন সবার উপরে অ্যাপ্লিকেশন ফেসবুকেও ছাড়িয়ে গিয়েছে ডাউনলোডের দিক দিয়ে এটি হয়তো অনেকেই জানেন ।

এই টিক টক এর শর্ট ভিডিও গুলো বানিয়ে মানুষ প্রতি মাসে হাজার হাজার কিংবা লক্ষ লক্ষ টাকা তারও বেশি ইনকাম করে নিচ্ছে ঘরে বসে হাতের স্মার্টফোনটি দিয়ে শুধুমাত্র একটি এপ্লিকেশন ব্যবহার করে এই টিকটকের জনপ্রিয়তা দেখে ইতিপূর্বে ইউটিউব তাদের নতুন একটি প্লাটফর্ম দাঁড় করিয়েছে যেটির নাম হচ্ছে ইউটিউব শর্ট সেটির মাধ্যমে টিকটকের মতো শট ভিডিও আপলোড করা যায় এবং সেখান থেকে জনগণ উপার্জন করতে পারে ।

যেহেতু টিকটক ও ইউটিউব এসব ভিডিওর প্রতি আগ্রহ দেখাচ্ছে যদি ফেসবুক এ দিকে লক্ষ না রাখে তাহলে মানুষগণ টিকটক ইউটিউব এর দিকে ছুটে পড়বে বা ঝুঁকে পড়বে তখন কিন্তু ফেসবুকের থেকে মানুষ মুখ ফিরিয়ে নেবে এই কারণেই মূলত ফেসবুকের পক্ষ থেকে নতুন একটি উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে এখন যে কেউ চাইলে ফেসবুক প্রোফাইল এর মাধ্যমে টাকা উপার্জন করতে পারবে ।

হয়তোবা আপনি অবাক হতে পারেন কারণ এতোদিন শুনছেন ফেসবুক গ্রুপ কিংবা ফেসবুক পেজ থেকে টাকা উপার্জন করা যায় তবে ফেসবুক প্রোফাইল থেকে টাকা উপার্জন করা যায় এটা শুনে হয়তোবা অনেকেই অবাক হয়েছেন হওয়াটাই কিন্তু স্বাভাবিক তবে ওই যে বললাম না প্রতিযোগিতামূলক বাজারে আসলে অনেক কিছুই বাধ্য হয়ে করতে হয় ।



বন্ধুগণ আজকে আপনাদের এই আর্টিকেলের মাধ্যমে তুলে ধরবো কিভাবে আপনারা ফেসবুক প্রোফাইল এর মাধ্যমে টাকা ইনকাম করবেন? কোন কাজগুলো করলে ফেসবুক প্রোফাইল এর মাধ্যমে টাকা ইনকাম করা যাবে? কিংবা কিভাবে আপনারা সে টাকাগুলো পকেট এ নিবেন এটুজেট জানানোর চেষ্টা করব তাই পুরো আর্টিকেলটি জুড়ে থাকুন ।


ফেসবুক প্রোফাইল থেকে মাসে 50000 টাকা | ফেসবুক নতুন নিয়মে টাকা ইনকাম চালু করলো


ফেসবুক প্রোফাইল কি?


ফেসবুক প্রোফাইল সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে হলে প্রথমে আমাদের ফেসবুকের অ্যাপ্লিকেশন এর ভিতর কিংবা ব্রাউজার দিয়ে ফেসবুক একাউন্ট ওপেন করতে হবে তারপরে পিকচারে দেখানো মেনু অপশন এ আমাদের প্রথম এ ক্লিক করতে হবে ।

যখনই আপনারা মেনু অপশন এ ক্লিক করবেন তখনই আপনারা নিচের স্ক্রীনশটএর পিকচারের মত অপশন টা পেয়ে যাবেন ।

মেনু অপশন এ দেখা জাগাতে ক্লিক করার পরে উপরে দেখানো স্ক্রিনশট এর ছবির মত আপনার নামসহ অপশনগুলো চলে আসবে এটাকে মূলত প্রোফাইল বলা হয়ে থাকে যে অপশন এর ভিতরে গিয়ে আপনার নাম এড্রেস সবকিছু দিতে হয় সেটা কে মূলত প্রোফাইল বলা হয়ে থাকে । এরপর যখন আপনারা নামের অপশন এ ক্লিক করবেন তখনই আপনাদের নিচে দেখানো স্ক্রীনশটএর মত অপশন চলে আসবে ।
এখন যে স্ক্রিনশটটা আপনারা উপরের দিকে দেখতে পারতাছেন এটা হল আপনাদের ফেসবুক অ্যাকাউন্টের মূল প্রোফাইল অর্থাৎ এখানে একটি মানুষের আইডেন্টি হিসাবে কাজ করে থাকে বা একটি মানুষের পূর্ণাঙ্গ সবকিছু প্রোফাইলের ভিতরে দেওয়া থাকে এই প্রোফাইলের মাধ্যমেই মানুষ মানুষকে ফেসবুকের মাধ্যমে চিনে থাকে ।

আশা করি আপনারা আল্লায় দিলে এতক্ষণে বুঝে গিয়েছেন যে ফেসবুক প্রোফাইল কাকে বলে? এই ফেইসবুক প্রোফাইল থেকে মূলত এখন টাকা উপার্জন করা যাবে ।


ফেসবুক প্রোফাইল থেকে কিভাবে টাকা ইনকাম করব?



আমরা এখন ইউটিউব প্লাটফর্মে গিয়ে যেভাবে শর্ট ভিডিও বানিয়ে টাকা উপার্জন করি যদিও সেই সব ভিডিও গুলো এখন পর্যন্ত মনিটাইজ করা যায় না কিন্তু সব শর্ট ভিডিও গুলো আপলোড করলে সেখানে যদি ভালো পরিমাণে ভিউ আসে তাহলে ইউটিউব এর পক্ষ থেকে একটি রিওয়ার্ড দেওয়া হয়ে থাকে অর্থাৎ পুরস্কার দেওয়া হয়ে থাকে এ জন্য ইউটিউব এর পক্ষ থেকে ইতিপূর্বে 100 মিলিয়ন এর উপরে ফান তারা গঠন করেছে ।

টিকটকে আমরা শর্ট ভিডিও চাইলে বানিয়ে সেটাকে টিক টক এ আপলোড করে দিলে যদি ঐ ভিডিওটিতে মোটামুটি ভালো মানের একটি ভিউ আসে তাহলেও কিন্তু টাকা উপার্জন করা যায় যদিও টিক টক এর পক্ষ থেকে রেফার করার কারণে হিউজ পরিমান টাকা ইনকাম দিয়েছিল তবে অনেক দেশেই ইতিপূর্বে ইউটিউব এর মত টিকটকের ভিডিও গুলোকেও মনিটাইজ করে টাকা উপার্জন করা যায় যদিও এখন পর্যন্ত বাংলাদেশ-ইন্ডিয়া সহ বেশিরভাগ দেশে এখনও এই সিস্টেমটি চালু হয়নি উন্নত কিছু দেশে এই নিয়মটি চালু হয়েছে তবে আস্তে আস্তে করে এটি সব দেশই এভেলেবেল হয়ে যাবে এটি অনেকটা বলাই যায় ।

এছাড়াও এখন সব দেশেই টিকটক কর্তৃপক্ষ যদি টিকটকের ভিডিও এক লক্ষ উপরে ভিউ হয় কিংবা ওই চ্যানেলে যদি 10 হাজারের উপরে ফলোয়ার থাকে তাহলে ওই চ্যানেল কর্ণধার কে একটি নির্দিষ্ট পরিমাণের অ্যামাউন্ট তারা দিয়ে থাকে প্রতি মাসে ।

টিক টক, ইউটিউব এর মতই ফেসবুক উদ্যোগ নিয়েছে ফেসবুক নতুন ভিডিও নির্মাতাদের জন্য তারা ফান গঠন করেছে অর্থাৎ ফেসবুকে, ইউটিউব ও টিক টক এর মত শর্ট ভিডিও যারা তৈরি করবে তাদেরকে দেওয়া হবে যেই ভিডিওগুলো বেশি রান করবে ভালো ভিউজ হবে তাদের কে রিওয়ার্ড দেওয়া হয়ে থাকবে ।

আমরা আগে জানতাম শুধুমাত্র ফেসবুক পেজ কিংবা ফেসবুক গ্রুপের মাধ্যমে বিভিন্ন ভাবে টাকা উপার্জন করা যায় কিংবা যেতো বা এখনো যাচ্ছে তবে রিসেন্টলি ফেসবুকের পক্ষ থেকে এই ঘোষণাটি এসেছে এখন যে কেউ চাইলে নিয়ম মেনে ফেসবুকের গাইডলাইন মেনে ফেসবুক প্রোফাইলে শর্ট ভিডিও আপলোড করে টাকা উপার্জন করতে পারবে ।

এখন অনেকে আবার বলতে পারেন ফেসবুক থেকে কত টাকা মাসে ইনকাম করতে পারব? এই বিষয়ে ফেসবুক থেকে বলা হয়েছে সর্বোচ্চ একজন ভিডিও নির্মাতা 35 হাজার ডলার পর্যন্ত পেতে পারেন যেটা বাংলাদেশি টাকায় ত্রিশ লক্ষ টাকার উপরে হয়ে থাকে তো বুঝতেই পারতেছেন কি পরিমাণে অর্থ ফেসবুক দেওয়ার চিন্তাভাবনা করেছে ভিডিও নির্মাতাদের মাঝে ।

তো বন্ধুরা এত টাকাত আসলে সবার পক্ষে পাওয়া সম্ভব হবে না তবে একটি আনুমানিক হিসাব অনুযায়ী একজন ভিডিও নির্মাতা যদি মোটামুটি মানের কনটেন্ট তৈরি করতে পারে তাহলে সে 50000 টাকা প্রতি মাসে কিংবা এক লক্ষ টাকা বা তারও বেশি ইনকাম করতে পারবে এটা অনেকটা বলা যায় পূর্বের অভিজ্ঞতা থেকে ।


কি ধরনের শর্ট ভিডিও ফেসবুক প্রোফাইলে আপলোড করতে হবে?


এই বিষয়ে প্রথমে যে বিষয়টা আসবে অবশ্যই কপিরাইট কন্টেন কখন এই ফেসবুক প্রোফাইলে আপলোড করা যাবে না অর্থাৎ নিজের তৈরি করা কনটেন্টগুলো ফেসবুক প্রোফাইলে আপলোড করা যাবে তা হলে মিলবে রিওয়ার্ড অন্যথায় শুধু শুধু সময় নষ্ট হবে কোন টাকা ইনকাম করা যাবে না ।

যদি আপনার ভিডিওগুলো ইউটিউব শর্ট প্লাটফর্মে থাকে কিংবা টিক টক এ থাকে সেগুলো আপনি চাইলে ফেসবুক প্রোফাইলে আপলোড করতে পারবেন এতে কোনো সমস্যা হবে না তবে আপনি কখনো অন্যের ভিডিও এনে আপনার ফেসবুক প্রোফাইলে দিতে পারবেন না এটা করলে ফেসবুক থেকে কঁপিরাইট ক্লাইম চলে আসবে ।

তবে 18 প্লাস ও সমাজের ক্ষতি করে এরকম কোন ভিডিও কখোনই ফেসবুক প্রোফাইলে আপলোড করা যাবেনা এই ছাড়া বাকি সব ধরনের ভিডিও গুলো ফেসবুক প্রোফাইল এর মাধ্যমে আপলোড করে টাকা উপার্জন করা সম্ভব এবং এটি প্রায় সকল দেশ থেকেই করা যাবে বলে ফেসবুকের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে ।


ফেসবুক থেকে টাকা কিভাবে তুলব?


ফেসবুক থেকে এখন পর্যন্ত টাকা পেমেন্ট নেওয়ার ক্ষেত্রে অবশ্যই ব্যাংক টেনাসফার এর মাধ্যমে করতে হয়ে থাকে কিংবা বিভিন্ন মাস্টার কার্ড ও ভিসা কার্ড এর মাধ্যমে করতে হয় যদি ফেসবুকের পেজ ও গ্রুপ থেকে টাকা উত্তোলন করতে হয় এর মাধ্যমে পেমেন্ট উঠানো যায় অন্যথা এখন পর্যন্ত আলাদা কোন নিয়ম বা সিস্টেম নেই ।

তবে ফেসবুক প্রোফাইল থেকে টাকা ইনকাম করার ব্যাপারটি যেহেতু নতুন এনেছে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ আর সকলের কাছেই যে ব্যাংক একাউন্ট থাকবে বা মাস্টারকার্ড ও ভিসা কার্ড থাকবে এমন কিন্তু নয় কারণ একটি সাধারণ মানুষও কিন্তু শর্ট ভিডিও বানিয়ে ফেসবুক প্রোফাইলে আপলোড করে দেবে টাকা ইনকামের আশায় তো বুঝতেই পারছেন সে ক্ষেত্রে অবশ্যই ফেসবুকে ভিন্নপথ অবলম্বন করতে হবে পেমেন্ট দেওয়ার ক্ষেত্রে ।

যেমনটা আমরা দেখেছিলাম টিকটকের বেলায় টিকটক কিন্তু দেশ অনুযায়ী লোকাল কারেন্সির মাধ্যমে টাকাগুলো নেওয়ার বা উত্তোলন করার উপায় করে দিয়েছিলেন আমরা বিকাশের মাধ্যমে কিন্তু টিকটক থেকে টাকা উত্তোলন করতে পেরেছিলাম আশা করা যাচ্ছে ফেসবুক এরকম দেশ অনুযায়ী লোকাল কারেন্সির মাধ্যমে যাতে টাকা উঠানো যায় ফেসবুক প্রোফাইলের শর্ট ভিডিও ইনকাম গুলো সে ব্যবস্থা করে দিবে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ । তবে এ বিষয়ে আরও আর্টিকেল আগামীতে আসবে এই জন্য আপনারা কমেন্ট করে আপনাদের মতামত জানাতে পারেন ও নিয়মিতভাবে আমাদের ডিজিটাল বাংলা 360 ওয়েবসাইটটি ভিজিট করতে পারেন আগামীতে এ বিষয়ে আরও বিস্তারিত আর্টিকেল আসবে ইনশাআল্লাহ ।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ