Ticker

6/recent/ticker-posts

Ads

ফরসেজ কি?-Forsage এ কিভাবে কাজ শুরু করব?-Forsage Income Plan A to Z

Forsage Income Plan A to Z



 বর্তমান সময়ে এমন একটা পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে যেখানে একটি মানুষ অন্য একটি মানুষের উপর বিশ্বাস রাখটেই অনেকেই দ্বিধা বোধ করে সে ক্ষেত্রে অনলাইন ভিত্তিক কোম্পানিগুলোর উপর আস্থা বা বিশ্বাস রাখাটা অনেকটা কষ্টসাধ্য। আপনাদেরকে যদি আরো সহজ ভাষায় বলি তাহলে বলতে হয় ধরুন একটি পরিবারে যদি পাঁচ জন মানুষ থাকে তাহলে পাঁচজন মানুষ কিন্তু একরকম হয় না তাদের চারিত্রিক , মানসিক এবং বৈশিষ্ট্যগত ভিন্নতা থেকে থাকে। ঠিক তেমনি অনলাইন ভিত্তিক যে কোম্পানিগুলো রয়েছে এদের মধ্যে প্রতিটা কোম্পানি যে ভালো আবার প্রতিটা কোম্পানি যে খারাপ এমনটা কিন্তু নয়। এদের মধ্যে অনেক কোম্পানি রয়েছে যারা ভালো আবার অনেক কোম্পানি রয়েছে যারা ফেক হয়ে থাকে । যদিও অনলাইন মার্কেটপ্লেসে বেশির ভাগ কোম্পানি এমন রয়েছে যারা মার্কেটে এসে কাজ করার প্রলোভন দেখিয়ে বিভিন্ন মানুষের কাছ থেকে টাকা নিয়ে চলে যায় । তবে সব কোম্পানি যে এমন এমনটা কিন্তু নয় । আবার অনলাইন ভিত্তিক অনেক কোম্পানি রয়েছে যারা বিশ্বস্ততা অর্জন করে কাজ চালিয়ে যাচ্ছে বছরের পর বছর ধরে । আর এজন্য অনেকেই কিন্তু বিভিন্ন  কোম্পানিগুলোতে ইনভেস্টমেন্ট এর মাধ্যমে কাজ করার আগ্রহ হারিয়ে ফেলে । তবে বিশেষ বিশেষ কিছু কোম্পানি রয়েছে যেগুলোর প্রযুক্তি এবং ফিউচার প্ল্যান দেখে আমরা সেখানে কাজ করার আগ্রহ খুঁজে পাই । আপনাদের বোঝার সুবিধার জন্য উদাহরণস্বরূপ বিটকয়েনের কথাই বলা যাক বিটকয়েন যখন মার্কেটে নতুন এসেছিল 2009 সালে তখনও কিন্তু বিটকয়েনকে বেশিরভাগ মানুষ বিশ্বাস করেনি কিন্তু এখন আপনারা দেখতে পারছেন বিটকয়েন এখন পৃথিবীতে অবস্থান করতে আছে ব্লক চেইন ভিত্তিক ডিসেন্ট্রালাইজ নাম্বার ওয়ান প্ল্যাটফর্ম ও কয়েন হিসেবে । আজকে আপনাদের মাঝে নতুন একটি কোম্পানি সম্পর্কে আলোচনা করা হলো সে কোম্পানিটির নাম হল Forsage Network। আর এই  Forsage Network ব্লক চেইনের অধীনে রয়েছে এবং এটি একটি ডিসেন্ট্রালাইজ বা হাই সিকিউরিটেড প্লাটফর্ম । যখন কোন কোম্পানি ব্লক চেইন এর অধীনে থাকে তখন কিন্তু অন্য কারো ওই কোম্পানিটির উপর কোন ব্যক্তিগত হস্তক্ষেপ থাকেনা । আর সেদিক বিবেচনায় এই Forsage Network কোম্পানিটির উপর আমরা অনেকটা বিশ্বাস বা আস্থা রাখতে পারি । আপনারা আরো জেনে খুশি হবেন পৃথিবীতে এই প্রথম এই ধরনের এই কোম্পানিটি ডিসেন্ট্রালাইজ ব্লক চেইন ভিত্তিক প্রযুক্তি নিয়ে চলে এসেছে । আর এখান থেকে কাজ করে আপনারা লক্ষ লক্ষ ডলার বা কোটি কোটি টাকা ইনকাম করতে পারবেন আর অনেকেই কিন্তু এই কোম্পানিটির মাধ্যমে কোটি কোটি টাকা ইনকাম করে নিয়েছে আবার অনেকে করার পথে আছে সেটার প্রমাণ আপনাদের সামনে এই রিভিউ এর মাধ্যমেই তুলে ধরা হলো । এই কোম্পানিটি থেকে আপনারা কিভাবে ইনকাম করবেন ? কিভাবে একাউন্ট খুলবেন এবং কিভাবে পেমেন্ট নিবেন সে বিষয়ে পূর্ণাঙ্গ এ টু জেড সম্পূর্ণ একটি ধারণা আপনাদের মাঝে নিচে তুলে ধরা হল । ( What is Forsage ? )


ফরসেজ কি?-Forsage এ কিভাবে কাজ শুরু করব?-Forsage Income Plan A to Z



Forsage কি ?


এখন আপনাদের সামনে যে কোম্পানিটি সম্পর্কে উপস্থাপন করা হবে সে কোম্পানিটির নাম হল ফরসেজ ওয়েবসাইট । এটা অনেকটা MLM কোম্পানির মত মনে হলেও এটা MLM কোম্পানি মত নয় । কিন্তু এই ফরসেজ ওয়েবসাইটের কার্যক্রম নেটওয়ার্ক মার্কেটিং এর মতো অনেকটা বলা যেতে পারে । তবে ডিসেন্ট্রালাইজ প্ল্যাটফর্ম হিসেবে এই কোম্পানিটি প্রথমবারের মতো ব্লক চেইন এর হাত ধরে এসেছে এই ধরনের কার্যক্রম নিয়ে । এই কোম্পানিটি সর্বপ্রথম রাশিয়ান নাগরিক মিস্টার লারু 31 জানুয়ারি 2020 সালে তৈরি করেন এবং পরবর্তীতে একটা সময় এই কোম্পানিটিকে ব্লক চেইনের অধীনে দিয়ে দেয় । এখন অনেকে প্রশ্ন করতে পারেন এক্ষেত্রে মিস্টার লারুর লাভ কি ? মিস্টার লারু ফরসেজ কোম্পানির  ব্লক চেইনের অধীনে দিয়ে দিয়েছে ঠিকই কিন্তু লাইফ টাইম কমিশন সে ঠিকই পাবে । এর কারণ হচ্ছে তিনি যেহেতু এই কোম্পানির টপ লিডার , তিনি প্রথম জয়েন হয়েছে এবং এই কোম্পানিটি ম্যাট্রিক্স সিস্টেমে চলে সেহেতো বলা যেতে পারে যত মানুষ এখানে জয়েন হবে তাদের থেকে মিস্টার লারু একটি কমিশন পেয়ে যাবে । আপনারা সকলে হয়তো জানেন ডিসেন্ট্রালাইজ কোম্পানিগুলো কখনো হ্যাক করা যায় না এটি অধিক ক্ষমতা সম্পন্ন সিকিউরেটেড প্ল্যাটফর্ম । অর্থাৎ এই কোম্পানির সকল কার্যক্রম ব্লগ চেইনের আন্ডারে থাকে । বিভিন্ন অভিজ্ঞতা সম্পন্ন বা এক্সপার্ট ব্যক্তিরা বলে থাকেন এই ফরসেজ কোম্পানিটি ধ্বংস হওয়ার কোন সম্ভাবনা নেই , যদি পৃথিবী থেকে ইন্টারনেট ধ্বংস হয়ে যায় তাহলে কেবল এই ফরসেজ কোম্পানিটি ধ্বংস হয়ে যাবে তাছাড়া সম্ভব নয় । তাহলে আমরা অনেকটাই বুঝতে পারছি এই কোম্পানিটির কাজ করার বিশ্বাসযোগ্যতা 100% এবং এখানে 0% রিস্ক রয়েছে । দুনিয়াতে যতগুলো এমএলএম বা নেটওয়ার্ক মার্কেটিং কোম্পানিগুলো এসেছে তখন কিন্তু এগুলো ব্যক্তি মালিকানা বা ব্যক্তি নিয়ন্ত্রণে চলে , আর কিছুদিন কাজ করার পর তারা আবার ঠিক চলে যায় মানুষের কাছ থেকে টাকা পয়সা নিয়ে । আর ফরসেজ কোম্পানিটি যেহেতু ব্লক চেইনের অধীনে নিয়ন্ত্রিত সেহেতো বলা যেতে পারে এটার চলে যাওয়ার সম্ভাবনা নেই । ( ফরসেজ ওয়েবসাইট কি ? )


ফরসেজ কোম্পানি ফুল ইনকাম প্ল্যান কি ?


ফরসেজ কোম্পানি থেকে তিন ভাবে ইনকাম করা যায় যেগুলো হল Active Upline Income ( একটিভ আপলাইন ইনকাম), Active Downline Income ( একটিভ ডাউন লাইন ইনকাম ) , Active Recycle Income ( একটিভ রিসাইকেল ইনকাম ) । এখান থেকে আপনারা কিভাবে ইনকাম করতে পারবেন সে বিষয়গুলোকে আপনাদের মাঝে আলোচনা করা হলো আপনাদের বোঝার সুবিধার জন্য । ( forsage company details )


Active Upline Income


ফরসেজ কোম্পানি থেকে ইনকাম করার প্রথম যে ধাপটি রয়েছে সেটির নাম হল Active Upline থেকে IncomeActive Upline Income  কি ? এবং এখান থেকে কিভাবে ইনকাম করা যায় সে বিষয়টি সম্পর্কে আপনাদেরকে ধারণা দেওয়া হল । ফরসেজ কোম্পানিতে যারা সব সময় কাজ করে বা একটিভ থাকে এবং কোম্পানি থেকে বিভিন্ন অফার গ্রহণ করে ইনকাম করে থাকে তাদেরকে Active Upline বলা হয়ে থাকে । আরো সহজ করে উদাহরণস্বরূপ বলা যায় Digital Bangla 360 কোম্পানিটির বিশ্বব্যাপী কমিউনিটি রয়েছে ইউটিউবে , ইনস্টাগ্রাম , ফেসবুকে এবং টিকটক চ্যানেলে । সেক্ষেত্রে Digital Bangla 360 কোম্পানির যে রেফার কোড রয়েছে সেটি ব্যবহার করে অনেক মানুষ ফরসেজ কোম্পানিতে প্রতিদিন জয়েন হচ্ছে এবং আগামীতেও হবে । এখন অনেকেই আপনারা প্রশ্ন করতে পারেন এখানে জয়েন হওয়ার ফলে ফরসেজ কোম্পানির লাভ হবে আপনাদের কোম্পানির রেফার কোড ব্যবহার করার কারণে আপনাদের Digital Bangla 360 কোম্পানির লাভ হবে এক্ষেত্রে আমরা যারা সাধারণ মানুষ রয়েছে আমাদের কি লাভ হবে ? এটা বুঝানোর জন্য আপনাদেরকে সহজ ভাবে আরও একটি উদাহরণ দেই আর সেটি হল ধরুন আপনি আজকে Digital Bangla 360 কোম্পানির রেফার কোড ব্যবহার করে ফরসেজ কোম্পানিতে জয়েন হলেন তাহলে পূর্ব দিন বা এর আগের দিন এই কোম্পানিতে যারা জয়েন হয়েছিল তারা কিন্তু কমিশন পেয়ে যাবে । আবার আপনি যেদিন জয়েন হয়েছেন তার পরের দিন যারা জয়েন হবে তাদের থেকে আপনি কিন্তু কমিশন পেয়ে যাবেন । আর এখানে ধারাবাহিকভাবে এই কোম্পানির রেফার কোড ব্যবহার করে যত বেশি মানুষ জয়েন হবে তত বেশি আপনারা Active Upline Income পেয়ে যাবেন । তাছাড়া আপনি যদি ইন একটিভ আপলাইনের মাধ্যমে জয়েন হন তাহলে কিন্তু এই ধারাবাহিকভাবে কমিশনের সুযোগ পাবেন না । আমাদের Digital Bangla 360 কোম্পানিটির রেফার কোড হল 652000 । এই কোডটি ব্যবহার করে আপনারা ফরসেজ কোম্পানিতে যদি জয়েন হন তাহলে ধারাবাহিকভাবে কমিশন পেতে থাকবেন লাইফটাইম । ( ফরসেজ আপলাইন ইনকাম কি ? )


Active Downline Income


ফরসেজ কোম্পানি থেকে ইনকাম করার পরবর্তী যে ধাপটি রয়েছে সেটি হল Active Downline Income  । এখন আপনাদের অনেকের মনে একটি প্রশ্ন থাকতে পারে একটিভ ডাউনলাইন কি এবং এখান থেকে কিভাবে কমিশন পাওয়া যাবে ? আপনাদেরকে বোঝানোর জন্য একটি সহজ উদাহরণ দেওয়া হল Digital Bangla 360 কোম্পানির রেফার কোড ব্যবহার করে যারা জয়েন হবে তারা মূলত অ্যাক্টিভ আপলাইন কমিশন পাবে আরো সহজ ভাবে বুঝিয়ে বলি ধরুন আপনি Digital Bangla 360 কোম্পানির রেফার কোড ব্যবহার করে ফরসেজ কোম্পানিতে জয়েন হলেন সে ক্ষেত্রে আপনি অ্যাক্টিভ আপলাইন কমিশন পাবেন এবং এখানে জয়েন হওয়ার পর আপনার যে রেফার কোড থাকবে সেটার মাধ্যমে যদি অন্য কাউকে জয়েন করাতে পারেন  সে ক্ষেত্রে আপনারা অ্যাক্টিভ ডাউনলাইন কমিশন পেয়ে যাবেন । আর প্রতিটি রেফার করার জন্য আপনারা 10 BUSD কমিশন পেয়ে যাবেন এবং এভাবে অগণিত রেফার করে অগনিত টাকা ইনকাম করে নিতে পারবেন । আর যদি আপনারা এখানে রেফার করতে না পারেন তাহলেও কিন্তু Active Downline কমিশন পাবেন না কিন্তু Active Upline কমিশন ধারাবাহিকভাবে পেতেই থাকবেন । আর যদি আপনার সামর্থ্য থাকে তাহলে কমপক্ষে দুইজন রেফার করাতে পারেন , আর এভাবে যদি সবাই দুইজন করে রেফার করাতে পারেন তাহলে কিন্তু আপনাদের কমিউনিটি অনেক বড় হবে এবং এখান থেকে হিউজ পরিমান লক্ষ লক্ষ বা কোটি টাকার উপরে ইনকাম করতে পারবেন । আপনি দুইজনকে যদি রেফার করতে পারেন তাহলে কিন্তু এখান থেকে $20 ডলার পেয়ে যাবেন অর্থাৎ প্রতিটা রেফারের জন্য $10 ডলার করে । আর এখানে কিন্তু আপনাদের ইনভেস্ট করা টাকা গুলো উঠে যাবে আর যে দুইজনকে রেফার করে জয়েন করালেন তাদের মাধ্যমে পরবর্তীতে যে ইনকামটা হবে সেটা তো বোনাস । ( ফরসেজ ডাউনলাইন ইনকাম কি ? )



Recycle Income


ফরসেজ কোম্পানী থেকে টাকা ইনকাম করার তৃতীয় যে ধাপটি রয়েছে সেটি হল Recycle Income । এটাকে অনেকটা লটারির মত বলা যেতে পারে । আপনাদেরকে বোঝানোর জন্য আরো সহজ একটা উদাহরণ তুলে ধরা হলো , আমরা অনেকেই ক্রিকেট এবং ফুটবল খেলার সাথে কম বেশি পরিচিত এখন আমরা যদি একটি টেনিস বল কে নিক্ষেপ করি তাহলে সেটা কোন দিকে যাবে সেটা কিন্তু নির্দিষ্ট করে বলা কঠিন । বলটি বাউন্স করার পর সেটা কোন দিকে যাবে সেটা কিন্তু আমরা জানি না । বলটি সামনেও যেতে পারে , আবার পিছনেও যেতে পারে , আবার ডান দিকেও যেতে পারে , আবার বাম দিকেও যেতে পারে , আবার ড্রপ খাওয়ার পর উপরেও উঠতে পারে সেটা কিন্তু বলা কঠিন । আর এই বিষয়টি আমরা ফরসেজ কোম্পানিটিতেও দেখতে পেয়ে যাই , এখানে একটি নির্দিষ্ট পরিমাণ Recycle কমিশন একটিভ আপলাইনেও যেতে পারে আবার একটিভ ডাউন লাইনেও যেতে পারে । ফরসেজ কোম্পানির recycle কমিশন কোম্পানিতে কাদেরকে দেওয়া হবে সেটা বলা অসম্ভব । অর্থাৎ টিম এর মধ্যে এটা যে কেউ পেতে পারে । ( ফরসেজ রিসাইকেল ইনকাম কি ? )


অ্যাকাউন্ট খোলার জন্য কত ডলার খরচ করতে হবে ?


একাউন্ট খোলার জন্য কত ডলার খরচ করতে হবে সেটা নির্ভর করবে আপনার উপর । আপনি কি ধরনের অ্যাকাউন্ট খুলতে চাচ্ছেন সেটার উপর নির্ভর করেই কিন্তু আপনার ডলার খরচ করতে হবে । এখানে অ্যাকাউন্ট খোলার জন্য আপনারা চারটি স্লট একটিভ করতে পারেন আবার আপনারা চাইলে দুইটি স্লট একটিভ করতে পারেন । এখন আপনি যদি চারটি স্লট একটিভ করতে চান তাহলে আপনাকে খরচ করতে হবে সর্বমোট $32 ডলার পর্যন্ত । আবার আপনি যদি 2 টি স্লট একটিভ করতে চান তাহলে আপনাকে খরচ করতে হবে সর্বমোট $12 ডলার পর্যন্ত । এখন আপনাদের সুবিধার জন্য একটি সহজ উদাহরণ আপনাদের মাঝে উপস্থাপন করা হলো ধরুন আপনি 200 গ্রাম সাবান কিনলেন 40 টাকা দিয়ে আবার ঠিক একই সাবান 400 গ্রাম 60 টাকা দিয়ে কিনতে পারবেন । এখন একটু হিসাব করে দেখুন মাত্র 20 টাকা বাড়িয়ে আপনি কিন্তু ডাবল পরিমাণ সাবান পেলেন । আবার আপনি 50 টাকা দিয়ে 2 জিবি ইন্টারনেট অফারে দেখতে পেয়ে যাবেন আবার কিছুদিন পর আবার অফার দেখতে পেয়ে যাবেন 70 টাকায় 5 জিবি । আর এমন অফার আসলে আপনি কিন্তু চিন্তা ভাবনা করে যে অফারটিতে আপনার লাভ বেশি সে অফারটি সাধারণত গ্রহণ করে থাকেন । ঠিক এরকমই সুবিধা আমরা ফরসেজ কোম্পানিতে দেখে থাকি । 12 BUSD দিয়ে একাউন্ট একটিভ করার জন্য আপনারা দুইটি স্লট ওপেন করতে পারবেন । আর আপনারা যদি $12 ডলার দিয়ে দুইটি স্লট ওপেন করেন তাহলে সেখান থেকে প্রতিবার সর্বোচ্চ $5 থেকে $10 ডলার ইনকাম করতে পারবেন । আর যদি $32 ডলার দিয়ে চারটি স্লট ওপেন করেন তাহলে প্রতিবার $10 থেকে $20 ডলার ইনকাম করতে পারবেন । $32 ডলার দিয়ে আপনারা যদি অ্যাকাউন্ট একটিভ করেন তাহলে কিন্তু ডাবল এর বেশি ফ্যাসিলিটি পাবেন । এখন আপনারা যার যার ব্যক্তিগত সুবিধা অনুযায়ী নিজ দায়িত্বে একাউন্ট তৈরি করতে পারেন । আবার যাদের বড় বড় টিম রয়েছে তারা ট্রিপল এক্স প্রোগ্রামে জয়েন হয়ে বেশি বেশি টাকা বা ডলার ইনকাম করতে পারবেন । এছাড়াও স্লট গুলোর মাধ্যমে আরও বিভিন্নভাবে তবে ইনকাম বাড়িয়ে নেওয়া যাবে তবে সে বিষয়ে আপনাদের যদি জানার আগ্রহ থাকে তাহলে সেটা কমেন্ট করে জানাতে পারেন যদি কমেন্টের পরিমাণ বেশি হয় তাহলে এই বিষয়গুলো নিয়ে পরবর্তীতে আরো একটি আর্টিকেল তৈরি করা হবে যেখান থেকে আপনারা আরো বিস্তারিত তথ্য জানতে পারবেন । ( ফরসেজ একাউন্ট কিভাবে খুলবো ? )



ফরসেজ কোম্পানি থেকে কত টাকা ইনকাম করা যাবে ?


এখন আমাদের অনেকের মনে কিন্তু একটি প্রশ্ন ঘোরপাক খাচ্ছে আর আপনারা বিভিন্ন সময় কমেন্টের মাধ্যমে জানিয়েছেন এখান থেকে আমরা কি পরিমাণ টাকা ইনকাম করতে পারব ? এখানে আমাদের নিজস্ব নির্দিষ্ট কোন কাজ নেই যার কারণে এই কোম্পানি থেকে আমরা কত টাকা ইনকাম করতে পারব সেটা নির্দিষ্ট ভাবে বলা অসম্ভব । তবে এখান থেকে আপনারা কি পরিমাণ টাকা ইনকাম করতে পারবেন সেটা নির্ভর করবে আপনি যে টিমে রয়েছেন সেটার উপর । আপনি যে টিমে রয়েছেন সে টিমের কমিউনিটি যদি বেশি হয় তাহলে আপনি সেখান থেকে অনেক বেশি বেশি টাকা ইনকাম করতে পারবেন অর্থাৎ কমিউনিটি যত বেশি হবে আপনার ইনকাম তত বেশি হবে । উদাহরণ স্বরূপ বলা যাক Digital Bangla 360 এই রেফার কোডটি ব্যবহার করে 652000 প্রতিদিন যদি 20 জন মানুষ অ্যাকাউন্ট খুলে তাহলে বুঝে নিন কি পরিমান কমিউনিটি এখানে তৈরি হবে । যারা আগে একাউন্ট খুলবে তারা কিন্তু পরবর্তী সময়ে যারা আবার একাউন্ট খুলবে ওখান থেকে কমিশন পেতেই থাকবে লাইফ টাইম । তবে আপনাদের একটি ধারণা দেই ফরসেজ একাউন্ট খোলার পরে আপনার প্রোফাইলে গিয়ে দেখতে পারবেন বিভিন্ন লিডারগণ ফরসেজ কোম্পানি থেকে কেউ $100000+ (লাখ) ডলার কেউবা আবার $200000+ (লাখ) ডলার আবার কেউ $400000+ (লাখ) ডলার বা আরো বেশি ইনকাম করে নিয়েছে । যেগুলোর প্রমাণ আমরা পূর্বেই বিভিন্ন সোশ্যাল মিডিয়া চ্যানেলের ভিডিওতে দেখিয়েছি । তাহলে আপনারা বুঝতেই পারছেন এখান থেকে কত টাকা ইনকাম করা যায় ? এখন আপনারা যদি নিজ দায়িত্বে ফরসেজ কোম্পানি থেকে ইনকাম করতে চান তাহলে আমাদের এই 652000 রেফার কোডটি ব্যবহার করে অ্যাকাউন্ট খুলতে পারেন তার কারণ হলো আমাদের টিম আস্তে আস্তে প্রতিদিনই  বড় হচ্ছে, আর এই কারণেই আপনাদের ইনকাম অনেক বেশি হবে । আশা করি আপনারা ধারণা পেয়েছেন এই কোম্পানিটি থেকে আপনারা কি পরিমান টাকা ইনকাম করতে পারবেন । 
( ফরসেজ থেকে কত টাকা ইনকাম করা যাবে ? )


ফরসেজ অ্যাকাউন্ট কিভাবে খুলবো ? এবং পেমেন্ট কিভাবে উঠাবো ?


অ্যাকাউন্ট খোলার জন্য সর্বপ্রথম আপনাদের প্রয়োজন হবে একটি ট্রাস্টেড ওয়ালেট । সেটি যেন আলাদা একটি নতুন ওয়ালেট হয় । যে ট্রাস্টেড ওয়ালেট খুলবেন সেটার (প্রাইভেট কি) গুলো ভালো করে সংগ্রহ করে রেখে দিবেন এগুলো যদি হারিয়ে ফেলেন তাহলে পরবর্তীতে আর ওয়ালেট এক্সেস বা লগইন করতে পারবেন না । এই ট্রাস্টেড ওয়ালেট আপনাদের প্রয়োজন হবে যদি আপনারা $32 ডলার দিয়ে একাউন্ট খুলতে চান তাহলে এই ট্রাস্টেড ওয়ালেটে BNB Smart Chain নামক যে ক্রিপ্ত কারেন্সি অ্যাড্রেস রয়েছে সেখানে আপনাদেরকে $4 ডলার ডিপোজিট করতে হবে এরপরে আপনারা এই ট্রাস্টেড ওয়ালেটে পেয়ে যাবেন BNB BUSD নামের আরেকটি এড্রেস । সেখানে আপনাদেরকে নূন্যতম $28 ডলার ডিপোজিট করে নিতে হবে । আর এই দুইটা এড্রেস এর নেটওয়ার্ক বাইনাস ওয়ালেটের সেটা আপনারা ভালো করেই জানেন । আপনারা চাইলে ট্রাস্টেড ওয়ালেটে যে ডলার গুলো ডিপোজিট করবেন সেগুলো বাইনাস ওয়ালেট থেকেও আনতে পারবেন । বাইনাস ওয়ালেট  P2P সিস্টেম এর মাধ্যমে ডলার লেনদেন করা যায় । এছাড়াও মোবাইল ব্যাংকিং এর মাধ্যমে ডলার কিনা যায় । এক্ষেত্রে আপনার মোবাইল ব্যাংকিং এর মাধ্যমে ডলার কিনে বাইনাস ওয়ালেটে নিয়ে যেতে পারবেন এবং সেখান থেকে সরাসরি ট্রাস্টেড ওয়ালেটেও নিয়ে যেতে পারবেন  বা বাইনাস ওয়ালেট থেকে ট্রাস্টেড ওয়ালেট ডলার গুলো ট্রান্সফার করে নিয়ে আসতে পারবেন । এর পরে আপনারা এই ডলারগুলো দিয়ে একাউন্ট ওপেন করতে পারবেন । একাউন্ট তৈরি করার জন্য আপনাদের 28 BUSD ডলার কাটবে এবং BNB Smart Chain যে $4 ডলার এর মতো ডিপোজিট করবেন সেখান থেকে গ্যাসপি হিসেবে কাটা হবে । টোটালি এই অ্যাকাউন্টটি ওপেন করার জন্য আপনার খরচ হবে 30 থেকে 31 ডলার । আর বাকিটা আপনাদের ওয়ালেটে থেকে যাবে । একাউন্ট খুলার সময় আপনাদের যদি কম ডলার থাকে তাহলে আপনাদের ডলারগুলো ভেনিস হয়ে যেতে পারে আর এজন্য রিস্কে যাওয়ার প্রয়োজন নেই । তাই আপনারা কমপক্ষে 28 BUSD রেখে এবং BNB Smart Chain $4 ডলার রেখে অ্যাকাউন্ট তৈরি করবেন । তাহলে আপনি প্রফেশনাল মানের চারটা স্লট সহ একাউন্ট ওপেন করতে পারবেন । ( ফরসেজ একাউন্ট কিভাবে খুলবো ? )



আপনারা যদি দুইটি স্লট অ্যাকাউন্ট তৈরি করতে চান তাহলে অ্যাকাউন্ট তৈরি করার জন্য আপনাদের সর্বমোট $12 ডলার খরচ করতে হবে । আর এজন্য একাউন্ট তৈরি করার জন্য আপনাদের 10 BUSD কাটবে এবং BNB Smart Chain  $2 ডলার গ্যাসপি হিসেবে কাটা হবে । এটাই হলো এখানে দুই রকম ভাবে একাউন্ট খোলার পার্থক্য । তবে আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় আপনাদের জানিয়ে রাখি আপনারা $32 ডলার দিয়ে একাউন্ট খুলেন বা $12 ডলার দিয়ে একাউন্ট খুলেন সেই একাউন্টগুলোর মেয়াদ কিন্তু লাইফ টাইম থাকবে । যারা নতুন রয়েছেন বা বুঝতে একটু সমস্যা হতে পারে তাদের জন্য একটি সুব্যবস্থা রয়েছে Digital Bangla 360 কোম্পানির পক্ষ থেকে আর সেটি হচ্ছে এই বিষয় নিয়ে একটি পূর্ণাঙ্গ ভিডিও তৈরি করা হয়েছে অর্থাৎ কিভাবে ফরসেজ একাউন্ট খুলবেন ? কোম্পানি সম্পর্কে বিস্তারিত প্লানগুলো কিভাবে জানবেন ? এবং অটো পেমেন্ট নেওয়ার জন্য ওয়ালেট কিভাবে কানেক্ট করবেন ? একটি ভিডিওতে এ টু জেড বিষয়গুলো পেয়ে যাবেন আর সেই ভিডিওটি দেখার জন্য এখানে ক্লিক করুন । 



তবে আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় আপনাদেরকে বলে রাখি পৃথিবীতে এই প্রথম এই ধরনের কোম্পানি এসেছে এই কোম্পানির আরো একটি বৈশিষ্ট্য হচ্ছে এই কোম্পানির মাধ্যমে যা ইনকাম করবেন সেগুলোকে ম্যানুয়াল ভাবে আপনাদের পেমেন্ট রিকোয়েস্ট করতে হবে না অর্থাৎ আপনার যা ইনকাম হবে এই ফরসেজ কোম্পানিতে প্রতিদিনের ইনকাম প্রতিদিন আপনার ট্রাস্টেড ওয়ালেটে অটোমেটিক চলে আসবে । এটা এই কোম্পানিটির জনপ্রিয়তা বাড়িয়ে দিতে সহযোগিতা করেছে বলে আমার কাছে মনে হয়েছে । আপনাদের কাছে বিষয়টি কেমন লেগেছে সেটা জানিয়ে কমেন্ট করতে ভুলবেন না । ( ফরসেজ থেকে কিভাবে পেমেন্ট নিবো ? )


আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় আপনাদের জানিয়ে রাখি আর সেটি হচ্ছে যারা বিশেষজ্ঞ বা এক্সপার্ট রয়েছেন তারা বলে থাকেন এই ফরসেজ কোম্পানির প্ল্যান দেখে যদি একজন ব্যক্তি শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত সঠিক ভাবে নিয়ম মেনে কাজ করে যেতে পারে তাহলে এখান থেকে $99,000 ডলার পর্যন্ত বা 99 লক্ষ টাকা পর্যন্ত ইনকাম করে নিতে পারবে । তবে এত বেশি পরিমাণ টাকাগুলো ইনকাম করার জন্য সময় দিতে হবে সেটা হতে পারে এক বছর বা দুই বছর বা তারও বেশি । এখন এখানে কাজ করা উচিত হবে কিনা সেটা আপনারা ভেবে চিন্তে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করতে পারেন । 



তবে মনে রাখবেন ফরসেজ কোম্পানির যেহেতু বিশ্বস্ত ইনভেস্টমেন্ট কোম্পানি এখানে আপনারা চাইলে নিজ দায়িত্বে অ্যাকাউন্ট একটিভ করে কাজ শুরু করে দিতে পারেন তবে এটা মনে রাখবেন আপনারা কখনোই ধার করে টাকা এনে কিংবা কিস্তি উঠিয়ে কখনো এখানে ইনভেস্ট করবেন না যদি আপনার কাছে অতিরিক্ত বেশি টাকা থাকে সেখান থেকে কিছু টাকা এখানে ইনভেস্ট করতে পারেন তবে সেটা আপনাদের ব্যক্তিগত ব্যাপার ।


এছাড়াও ফরসেজ কোম্পানি সম্পর্কে যদি আরও আপডেট নিউজগুলো সবার আগে পেতে চান তাহলে এখানে ক্লিক করে টেলিগ্রাম চ্যানেলে জয়েন করুন।


Meta force কোম্পানিতে প্রতিদিন ১০০০ টাকার উপর ইনকাম করতে চাইলে এখানে ক্লিক করে আর্টিকেলটি পড়ে কাজ শুরু করে দিতে পারেন।

Post a Comment

0 Comments