Ticker

6/recent/ticker-posts

Ads

অন্যের এনআইডি কার্ড ও বাইমেটিক দিয়ে বিক্রি করা হচ্ছে মোবাইলের সিম কার্ড-Free Sim Offer

 ফ্রী সিম অফার



একটি মানুষ বাঁচার জন্য যেরকম নিঃশ্বাসের প্রয়োজন রয়েছে ঠিক উদাহরণস্বরূপ বলা যেতে পারে একটি মোবাইলের প্রাণ হচ্ছে একটি সিম কারণ যত দামি হোক না কেন কিংবা যত কম দামি হোক না কেন সিম কার্ড যদি ওই ফোনে না থাকে তাহলে সে ফোনটির আসলে সেরকম কোনো কার্যকারিতা থাকে না।

এই বিষয়টি আমরা কম আর বেশি অনেকেই জানি কারন আমরা যারা মোবাইল ব্যবহার করি তাদের প্রত্যেকের মোবাইলে কমপক্ষে একটি আর 95 শতাংশ মানুষের মোবাইলে দেখা যায় দু'টি তিনটি করে সিম লাগানো থাকে একটি মোবাইলে সেটিও কিন্তু কারো অজানা নয়।



অন্যের এনআইডি কার্ড ও বাইমেটিক দিয়ে বিক্রি করা হচ্ছে মোবাইলের সিম কার্ড




বাংলাদেশে এখন 17 কোটির মত মানুষ রয়েছে কিন্তু তার বিপরীতে অ্যাক্টিভ সিমের সংখ্যা রয়েছে 18 কোটির উপরে বিষয়টি কিন্তু অনেকটা অবাক করার মতোই যাই হোক কারণ হচ্ছে একটি মানুষের দুটি তিনটি চারটি কিংবা তারও বেশি একটিভ সিম রয়েছে সেই হিসাব করলে আসলে মানুষের তুলনায় সিম কার্ডের সংখ্যা বেশি একটিভ রয়েছে যদিও বিষয়টা অনেকটা মজাদায়ক।

একটি সময় বিভিন্ন পত্র পত্রিকার মাধ্যমে আমরা শুনতে পেয়েছিলাম একটি এনআইডি কার্ডের বিপরীতে 47 হাজারেরও বেশি সিম রেজিস্ট্রেশন করা হয়েছিল সেটি হয়েছিল অবশ্য বায়োমেট্রিক পদ্ধতি সিম রেজিস্ট্রেশন এর আগে তবে এবার বায়োমেট্রিক সিম রেজিস্ট্রেশন করেও যেন শান্তি পাচ্ছেন না অনেকে কারণ এখনও নিজের সিম  চালাচ্ছে অন্যে বিষয়টা কি বুঝতে পারছেন?।

অর্থাৎ কিছু প্রতারক চক্র এই কাজটি করে যাচ্ছে অর্থাৎ অন্যের নামে সিম রেজিস্ট্রেশন করে সেটিকে আরেকজনের কাছে বেশি দামে বিক্রি করে দিচ্ছে এতে করে কিন্তু যার নামে সিম রেজিস্ট্রেশন করা হয়েছে সে কিন্তু বিষয়টি জানতেও পারল না, এখন কথা হচ্ছে যার কাছে সিমটি বিক্রি করেছে সে যদি কোন ক্রাইম করে তাহলে ফেঁসে যেতে পারে যার নামে সিম রেজিস্ট্রেশন করা হয়েছে।




নতুন অভিনব কায়দায় এই কাজটি করা হচ্ছে এই অসম্ভবকে সম্ভব করেছে কিছু অসাধু লোকজন এই নিয়ে সম্প্রতি বাংলাদেশের গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছে একটি নিউজ যেখানে দেখা গেছে একটি ছেলে রেজিস্ট্রেশন ছাড়া সিম বিক্রি করতেছে অন্যের কাছে অর্থাৎ ঐ সিমটি আরেকজনকে দিয়ে কৌশলে রেজিস্ট্রেশন করিয়ে নিয়েছিল পড়ে বেশি দামে অন্যের কাছে বিক্রি করে দিচ্ছে এরকম দৃশ্য চোখে পড়েছে।

কথাটি হয়তোবা আপনারা শুনে অবাক হয়েছেন আবার হয়তোবা অনেকে বিশ্বাস নাও করতে পারেন এই জন্য রেফারেন্স হিসাবে এখন আপনাদের মাঝে শেয়ার করব বাংলাদেশের স্যাটেলাইট টেলিভিশন যমুনা টিভিতে এই বিষয় নিয়ে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়েছে আপনারা চাইলে এখানে ক্লিক করে যমুনা টিভির সংবাদটি দেখে নিতে পারেন তাহলে এ সংক্রান্ত আরো বিস্তারিত জানতে পারবেন।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্যসমূহ