Ticker

6/recent/ticker-posts

Ads

যেকোনো নাম্বারে মাত্র 30 পয়সা মিনিট কথা বলুন সারা জীবন

 একটা সময় ছিল আমরা সকলে সকল অপারেটরে মাত্র 25 পয়সা বা 30 পয়সা মিনিট কথা বলতে পারতাম 24 ঘন্টা মাত্র বছর তিনেকের আগের কথা । যদিও এটা এখন ইতিহাস । খানিকটা সময় বিরতি দিয়ে আবারও দেশে চালু হলো যেকোনো মোবাইল নাম্বারে মাত্র 30 পয়সা মিনিট কথা বলার সুযোগ 24 ঘন্টা ।


যেকোনো নাম্বারে মাত্র 30 পয়সা মিনিট কথা বলুন সারা জীবন



তবে এবার কৌশলটা একটু পরিবর্তন হয়েছে অর্থাৎ আগে মোবাইল টু মোবাইল সরাসরি কল দিলে 25 পয়সা কিংবা 30 পয়সা মিনিট কথা বলা যেত । তবে এখন থেকে মাত্র 30 পয়সা মিনিটে যেকোনো নাম্বারে কথা বলতে হলে একটি অ্যাপ্লিকেশনের সাহায্য নিতে হবে অর্থাৎ একটি অ্যাপ এর মাধ্যমে এই সুযোগটি নেওয়া যাবে । আপনারা হয়তো জেনে সকলে খুশি হবেন যে বাংলাদেশ সরকার নিজেই এই উদ্যোগ নিয়েছেন অর্থাৎ বাংলাদেশ সরকারের নিজস্ব অ্যাপ এর মাধ্যমে মাত্র 30 পয়সা মিনিট যেকোনো নাম্বারে কথা বলা যাচ্ছে 24 ঘন্টা তবে এক্ষেত্রে কিছু নিয়ম মেনে নিলে এই সুবিধা পাওয়া যাবে অন্যথায় এই সুবিধা মিলবে না ।


কিভাবে 30 পয়সা মিনিট যে কোন নাম্বারে কথা বলতে পারব ?

যেকোনো নাম্বারে 24 ঘন্টা 30 পয়সা মিনিট কথা বলতে হলে যে কাজটি অবশ্যই করতে হবে । প্রথমে গুগল প্লে স্টোরে গিয়ে আলাপ লিখে সার্চ করতে হবে ।  আলাপ অ্যাপ্লিকেশনটি ডাউনলোড করে নিতে হবে । এরপর একাউন্ট  খুলে নিতে হবে একটি মোবাইল নাম্বার দিয়ে সেটা হতে পারে গ্রামীণফোন বাংলালিংক টেলিটক এয়ারটেল রবি এরপর আমরা যেভাবে হোয়াটসঅ্যাপ অ্যাকাউন্ট কিংবা ইমু একাউন্ট যেভাবে খুলি ঠিক হই ভাবে করে মোবাইল নাম্বার দিয়ে অ্যাকাউন্ট খুলে নিতে হবে ।

এখন যে কাজটা করতে হবে সবার আগে এবং এই কাজটি না করলে 30 পয়সা মিনিট কথা বলতে পারবেন না সেটা হল আপনার এনআইডি কার্ড এর বিপরীতে যে সিম কার্ডটি রেজিস্ট্রেশন করা ওই একই মোবাইল নাম্বার ও আইডি কার্ড দিয়েই আলাপ অ্যাপ্লিকেশনটি ভেরিফাই করে নিতে হবে । 

 যদি আপনি এনআইডি কার্ড দিয়ে আলাপ অ্যাপ্লিকেশন টি ভেরিফাই করে না নেন তাহলে আপনি যেকোন মোবাইল নাম্বারে অর্থাৎ গ্রামীণফোন বাংলালিংক রবি এয়ারটেল টেলিটকে 30 পয়সা মিনিট কথা বলতে পারবেন না । 


কিন্তু আপনি চাইলে ভেরিফাই ছাড়াও আলাপ টু আলাপ অডিও কল এবং ভিডিও কল করতে পারবেন এতে কোনো সমস্যা হবে না । 


একটি এনআইডি কার্ডের বিপরীতে কয়টি আলাপ অ্যাপ ভেরিফাই করা যাবে ?


যেহেতু বাংলাদেশ সরকারের নিয়ম অনুযায়ী একটি এনআইডি কার্ডের বিপরীতে সর্বোচ্চ 15 টি সিম নিবন্ধন বা রেজিস্ট্রেশন করা যায় । সেই যুক্তিতে আলাপ অ্যাপ্লিকেশনটি যেহেতু সরকারের নিজস্ব সেই হিসাবে একাধিক আলাপ অ্যাপ্লিকেশন একটি এনআইডি কার্ড এর বিপরীতে রেজিস্ট্রেশন করা যেতে পারে । আমি নিজের অভিজ্ঞতা থেকে বলছি আমি একটি এনআইডি কার্ডের বিপরীতে দুটি আলাপ এপলিকেশন রেজিস্ট্রেশন করতে পেরেছি হয়তোবা এখন সুযোগটি দিচ্ছে পরবর্তীতে নাও দিতে পারে ।

আলাপ অ্যাপ্লিকেশনটি ভেরিফাই করার সময় অবশ্যই আলোতে গিয়ে এনআইডি কার্ডের ছবি ও নিজের একটি সেলফি তুলে দিতে হবে । যদি আপনারা আলোতে গিয়ে ছবি না তোলেন তাহলে ছবি স্পষ্ট নাও হতে পারেন ।

এতে কি কোনো মাসিক ফি দিতে হবে ?


কখনোই না আলাপ অ্যাপ্লিকেশনটি ব্যবহার করতে হলে কোন মাসিক ফি দিতে হবে না । আপনারা আরো জেনে খুশি হবেন যে আলাপ অ্যাপ্লিকেশনটি দুইভাবে ব্যবহার করা যায় ফ্রিতে ব্যবহার করা যায় এবং টাকা দিও ব্যবহার করা যায় ।

অ্যাপ্লিকেশনটি ব্যবহার করতে ব্যালেন্স পাব কোথায় ?


এটা একটা ভালো প্রশ্ন কারণ আমরা যখন অন্য অন্য অপারেটরগুলোর সিমে টাকা ভরতে চাই তখন বিভিন্ন দোকানে গিয়ে আমরা রিচার্জ করে নিতে পারি নিজের চাহিদা মতো । আলাপ অ্যাপ্লিকেশনটি যেহেতু বাংলাদেশ সরকার নতুন চালু করেছে সেহেতু এখনো দোকানে গিয়ে রিচার্জ করার অপশন হয়তোবা এখনো সবাই পাবেন না । তবে আপনারা চাইলে বিকাশ নগদ ও মাস্টার কার্ড ভিসা কার্ড কিংবা ব্যাংকের থেকে টাকা নিয়ে আলাপ অ্যাপ্লিকেশনটি ব্যালেন্স রিচার্জ করতে পারবেন । একটি বাতি সুবিধার কথা আপনাদের জানিয়ে রাখি সেটা হলো আমরা যেভাবে দোকানগুলোতে গিয়ে সর্বনিম্ন 10 টাকা থেকে সর্বোচ্চ এক হাজার টাকা পর্যন্ত রিচার্জ করতে পারি ঠিক ওরকমই আলাপ অ্যাপ্লিকেশনটিতে ও বিকাশ নগদ থেকে কিংবা অন্যান্য মাধ্যমগুলো থেকেও সর্বনিম্ন 10 টাকা থেকে সর্বোচ্চ এক হাজার টাকা পর্যন্ত রিচার্জ করতে পারবেন সবাই একবারে ।


একাউন্ট ব্যালেন্স এর কি কোন মেয়াদকাল থাকবে ?


এই বিষয়ে এখনো কোনো কিছু নির্ধারণ করা হয়নি কতদিন ব্যালেন্স এর মেয়াদ কাল থাকবে অ্যাপ্লিকেশনটি যেহেতু নতুন সে হিসাবে এখন হয়তবা সুযোগটা দিয়েছে আনলিমিটেড মেয়াদকাল থাকার । তবে আগামীতে হয়তোবা সময়সীমা দেওয়া হতে পারে ।


আলাপ অ্যাপটি কি শুধু বাংলাদেশের ভিতরে ব্যবহার করার যোগ্য নাকি ইন্টারন্যাশনাল ?


এই প্রশ্নের উত্তরে বলা যায় যে আলাপ অ্যাপ্লিকেশনটি বাংলাদেশের ভিতরে ব্যবহার করতে পারবেন ও আরো আপনারা জেনে খুশি হবেন পৃথিবীর যেকোন দেশ থেকে আলাপ অ্যাপ্লিকেশনটি ব্যবহার করা যাবে । ঠিক হোয়াটসঅ্যাপ ইমু এই ধরনের অ্যাপ্লিকেশন গুলোর মতএই যে কেউ আলাপ অ্যাপ্লিকেশনটি ব্যবহার করতে পারবে এতে কোনো বাধা নেই । এটা অবশ্য বলে রাখা ভালো যারা বাংলাদেশ থেকে ব্যবহার করবেন আলাপ অ্যাপ্লিকেশনটি তারা একটু বেশি সুবিধা পাবেন এই সুবিধাটি হচ্ছে লোকাল নাম্বার গুলোতে 30 পয়সা মিনিট কথা বলার ।


আর কি কি সুবিধা আলাপ অ্যাপটিতে পাওয়া যাবে ?


এই অ্যাপ্লিকেশনটির ভিতরে আরেকটি চমৎকার ফিউচার রয়েছে সেটি হলো এই অ্যাপ্লিকেশনটির ভিতরেই সরাসরি কল রেকর্ড করার অপশন রয়েছে । আরো রয়েছে বিভিন্ন ধরনের নিউজ পড়ার সুবিধা এবং এছাড়াও গুরুত্বপূর্ণ আরেকটি সুবিধা হচ্ছে বাংলাদেশের ভিতরে যারা আছেন তারা এই সুবিধাটি পেয়ে থাকবেন সেটা হল বিদ্যুত বিল পানির বিল গ্যাস বিল ইন্টারনেট বিল এ ধরনের সুবিধা গুলো আগামীতে আসতে পারেে। 

অ্যাপ্লিকেশনটি কি অফলাইনে ব্যবহার করতে পারব ?

অ্যাপ্লিকেশনের মাধ্যমে যেহেতু সকল কার্যক্রম পরিচালনা করতে হবে বা চালাতে হবে সেক্ষেত্রে ইন্টারনেট অবশ্যই লাগবে কারন ইন্টারনেট ছাড়া তো আর অ্যাপ্লিকেশনটি চলবে না ।  এখন আবার অনেকে বলতে পারেন যে ইন্টারনেট যদি ব্যবহার করতেই হয় তাহলে 30 পয়সা মিনিট কথা বলে কি লাভ ? আসলে এ প্রশ্নের উত্তরে বলতে হলে বলতে হবে ইন্টারনেট কানেকশন অ্যাপটিতে থাকতে হবে ঠিকই কিন্তু মোবাইলে কল দেওয়ার ক্ষেত্রে তো খুব একটা ইন্টারনেট এমবি খরচ হবে না । তবে আলাপ টু আলাপ অডিও কিংবা ভিডিও কল করার ক্ষেত্রে অবশ্যই ইন্টারনেট এমবি খরচ হবে ।


আলাপ অ্যাপ্লিকেশনটি কি সরকার অনুমোদিত ?

বাংলাদেশ সরকার অনুমোদিত তো অবশ্যই আরো আপনারা জেনে খুশি হবেন আলাপ অ্যাপ্লিকেশনটি সম্পন্ন বাংলাদেশ সরকারের নিজেরই ও নিজেদের অধীনে অর্থাৎ বাংলাদেশ সরকারের বিটিআরসি নিজস্ব অ্যাপ্লিকেশন আলাপ ডিজিটাল অ্যাপটি পরিচালনা করে থাকে ।

Post a Comment

2 Comments